শিরোনাম:
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১ আশ্বিন ১৪২৮

Natun Khabor
মঙ্গলবার ● ৩১ আগস্ট ২০২১
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » কুবি শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করছে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » কুবি শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করছে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’
৩৮ বার পঠিত
মঙ্গলবার ● ৩১ আগস্ট ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

কুবি শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করছে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নতুন খবর:

---
বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে তরুণ প্রজন্মের জন্য বিভিন্ন শিক্ষালয়ে তৈরি করা হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে ২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর চালু করা হয় ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’। কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির উদ্যোগে তৎকালীন ভিসি প্রফেসর ড. আমির হোসেন খান কর্নারটি চালু করেন। অল্পসংখ্যক বই নিয়ে শুরু করা কর্নারটিতে প্রায় ৪ শতাধিক বই রয়েছে।
বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের আন্দোলন সংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন বই শোভা পাচ্ছে কর্নারটিতে। ‘কারাগারের রোজনামচা’, ‘অসমাপ্ত আত্নজীবনী’, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনী ও রাজনীতি’, ‘Poet of Politics, History of Bangladesh’, ‘লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে’, ‘শেখ মুজিব বাংলার জাতীয়তাবাদ’, ‘বঙ্গবন্ধু থেকে খালেদা জিয়া’, ‘মূলধারার ৭১’, ‘একাত্তরের ডায়েরি’, ‘তাজউদ্দীনের ডায়েরি’সহ চার শতাধিক বই রয়েছে। এছাড়া রয়েছে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন স্থিরচিত্র।

‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ বঙ্গবন্ধুকে জানার সুযোগ পাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে পড়ুয়ারা ভিড় জমায় এই কর্নারে। তবে পর্যাপ্ত বইয়ের অভাববোধ করছেন শিক্ষার্থীরা। বঙ্গবন্ধুর চেতনা, চিন্তা-দর্শন, ব্যক্তিজীবন, রাজনৈতিক জীবন সম্পর্কে জানতে চান, শিক্ষা নিতে চান তারা। তবে আরো বইয়ের প্রয়োজন তাদের।

শিক্ষার্থীদের মনোরম পরিবেশ নিশ্চিত করতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে লাইব্রেরি কর্তৃপক্ষ। তারা লাইব্রেরিতে সুসজ্জিত করার পাশাপাশি কক্ষগুলো সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত করেছে। ঘরে বসে লাইব্ররির হাজারো বই পড়তে পারবে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। রিমোর্ট এক্সেস ব্যবহার করে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির ই-বুকস, ই-জার্নাল ব্যবহারের সুবিধা নিতে পারবেন। এছাড়া কম্পিউটার প্রশিক্ষণের জন্য রয়েছে কম্পিউটার ল্যাব ও ই-রিসোর্স।

কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি সূত্রে জানা যায়, লাইব্রেরিতে বর্তমানে বইয়ের সংখ্যা ২১ হাজার। যার মধ্যে মাত্র ৩৮৫টি বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক বই। মূলত বিভাগীয় বই রয়েছে লাইব্রেরিতে। এছাড়া রয়েছে শতাধিক গবেষণা জার্নাল। তবে বিভাগীয় একাডেমিক বইয়ের আধিক্যতার ফলে বঙ্গবন্ধু কর্নারে নেই পর্যাপ্ত বই।

আল আমিন নামের একজন শিক্ষার্থী বলেন, বঙ্গবন্ধু একটি নাম নয় একটি প্রতিষ্ঠান, একটি ইতিহাস। আমাদের প্রজন্মের সৌভাগ্য হয়নি বঙ্গবন্ধুকে দেখার। ফলে বঙ্গবন্ধুকে জানার একমাত্র উপায় বই। বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরির বঙ্গবন্ধু কর্নার সে সুযোগ করে দিচ্ছে। কর্নার বিভিন্ন বই পড়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হতে পারছেন তারা।

ডেপুটি লাইব্রেরিয়ান মহি উদ্দিন মোহাম্মদ তারিক ভূঁঞা বলেন, একটি সমৃদ্ধ লাইব্রেরির জন্য প্রয়োজন পর্যাপ্ত জায়গা ও বই। আমাদের অধিক পরিমাণে বই থাকলেও নেই জায়গা। দুইটি বড় রুমে জায়গা না হওয়ায় করিডোরকে আমরা লাইব্রেরি হিসাবে ব্যবহার করছি। এখানে আমাদের অনেক সীমাবদ্ধতা রয়েছে। যার কারণে ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও সমৃদ্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না।





আর্কাইভ

জানা গেলো অপূর্বর তৃতীয় স্ত্রীর পরিচয়, প্রকাশ্যে ছবি
বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ শহর: নেই চুরি-ডাকাতি, আছে পরিবেশ-স্বাস্থ্যগত সুরক্ষাও
উৎসুক জনতার ভিড়ের মাঝেই বিস্কুট খেতে খেতে বাসায় ঢুকলেন পরীমনি
চালের চা পানের উপকারিতা ও তৈরি পদ্ধতি
যৌথ সমঝোতায় বিদায় নিলেন উইলিয়ান
অর্জন ও পজিটিভ বাংলাদেশকে তুলে ধরতে নিউজপোর্টাল চালু করলো পুলিশ
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত শিগগিরই: স্বাস্থ্যের ডিজি
ওসি প্রদীপের জামিন নামঞ্জুর, স্ত্রীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা