শিরোনাম:
ঢাকা, রবিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ন ১৪২৮

Natun Khabor
সোমবার ● ৩০ আগস্ট ২০২১
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » শিক্ষার প্রতিটি স্তরেই অত্যাবশ্যকীয় মুজিব চর্চা থাকা উচিৎ: শিক্ষামন্ত্রী
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » শিক্ষার প্রতিটি স্তরেই অত্যাবশ্যকীয় মুজিব চর্চা থাকা উচিৎ: শিক্ষামন্ত্রী
৭৮ বার পঠিত
সোমবার ● ৩০ আগস্ট ২০২১
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

শিক্ষার প্রতিটি স্তরেই অত্যাবশ্যকীয় মুজিব চর্চা থাকা উচিৎ: শিক্ষামন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,নতুন খবর:

---
শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষার প্রতিটি স্তরেই অত্যাবশ্যকীয় মুজিব চর্চা থাকা উচিৎ। যে শিক্ষায় মুজিবচর্চা নেই সেখানে সোনার মানুষ গড়ে উঠবে না। তাই মুজিবচর্চা প্রয়োজন। মুজিবচর্চা মানে আমরা ইতিহাস সম্পর্কে জানব। নিজেদের গন্তব্য চিনে নিতে পারব। যতোবেশি মুজিবচর্চা করতে পারব ততোবেশি আমাদের আত্নপরিচয় উপলব্ধি করতে পারব।
রোববার (২৯ আগস্ট) রাত ৮টায় জুম অ্যাপে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে কুবি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে এই স্বল্প পরিসরে জানা সম্ভব নয়। কারণ তার জীবনের প্রতিটি দিনই ঘটনাবহুল। বাংলা ও বাঙালি জাতির প্রতি ভালোবাসার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত তিনি রেখে গেছেন।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে ঘৃন্য হত্যাকারীরা জয় বাংলার বদলে পাকিস্তান জিন্দাবাদ প্রতিষ্ঠিত করেন। বাংলাদেশ বেতার হয়ে যায় রেডিও পাকিস্তানের আদলে রেডিও বাংলাদেশ। যেই দেশের স্বপ্নদ্রষ্টা ছিলেন বঙ্গবন্ধু ১৫ আগস্টের পর তিনিই হয়ে যান নিষিদ্ধ।

ভিসি অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় মূখ্য আলোচক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু এদেশের মানুষের হৃদয়ের মাঝে স্বাধীনতার তীব্র আকাঙ্খা জাগ্রত করেছিলেন। বর্তমানে আমরা বঙ্গবন্ধুর যে আদর্শকে লালন করার কথা বলি সেটি কাজে পরিণত করতে হবে। আজকে যারা ছাত্রলীগ করে কিংবা বঙ্গবন্ধুর দল করে মানুষের প্রতি তাদের আবেগ অনুভূতি এবং দায়িত্ববোধ কেমন সেটি তাদের নিজেদের বিবেচনা করতে হবে। আমাদেরকে মনে রাখতে হবে মহান পিতা লোভ লালসার উর্ধ্বে শুধুমাত্র জাতি গঠনে আত্মত্যাগ করেছিলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. জিএম মনিরুজ্জামানের সঞ্চালনায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো. আসাদুজ্জামান, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. শামিমুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন।

ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো. আসাদুজ্জামান বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের জাতির পিতা। তাকে কি শুধু আমরা মুখেই স্বীকৃতি দিচ্ছি নাকি অন্তরের সেটি ধারন করছি। তিনি আমাদের রাষ্ট্র গঠনে এবং অর্থনৈতিক মুক্তির নায়ক হিসেবে চিরজীবন বেঁচে থাকবেন।

সভাপতির বক্তব্যে ভিসি অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন, আমি বিশ্বাস করি বঙ্গবন্ধুর একক নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। আমি বলতে চাই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে আমাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালনে আমরা কতটা সচেতন। সবার উচিত এই অর্থনৈতিক মুক্তি, সমৃদ্ধি অর্জন, এবং শ্রেষ্ঠ জাতি হিসেবে নিজেদের পরিচিত করার জন্য ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করা।





আর্কাইভ

জানা গেলো অপূর্বর তৃতীয় স্ত্রীর পরিচয়, প্রকাশ্যে ছবি
বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ শহর: নেই চুরি-ডাকাতি, আছে পরিবেশ-স্বাস্থ্যগত সুরক্ষাও
উৎসুক জনতার ভিড়ের মাঝেই বিস্কুট খেতে খেতে বাসায় ঢুকলেন পরীমনি
চালের চা পানের উপকারিতা ও তৈরি পদ্ধতি
যৌথ সমঝোতায় বিদায় নিলেন উইলিয়ান
অর্জন ও পজিটিভ বাংলাদেশকে তুলে ধরতে নিউজপোর্টাল চালু করলো পুলিশ
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত শিগগিরই: স্বাস্থ্যের ডিজি
ওসি প্রদীপের জামিন নামঞ্জুর, স্ত্রীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা