নির্বাচনে কোনো শক্তি হস্তক্ষেপ করবে তা আশা করি না : কাদের

স্টাফ রিপোর্টার
বিদেশি শক্তি আমাদের বন্ধু হতে পারে। কিন্তু নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করবে আমরা তা আশা করি না। আগামী দুই একদিনের মধ্যে ভারত সফর সম্পর্কে সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে। আমরা সত্য লুকাবো না। বললেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
মঙ্গলবার বিকেলে তিনদিনের দিল্লি সফর শেষে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।
কাদের বলেন, তাদের সঙ্গে আমাদের অনেক কথা বার্তা হয়েছে। কাগজপত্রও রয়েছে। এসব বিষয় আমরা সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তুলে ধরবো।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ভারত অতীতেও আমাদের নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করেনি, এবারও করবে না। আমরা ভারতের অনেক নেতার সঙ্গে কথা বলেছি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ভারতের রোলিং পার্টির আমন্ত্রণে আমরা সেখানে গিয়েছিলাম। সেখানে পার্টি টু পার্টি আলোচনা হয়েছে। আমরা সব ইস্যুগুলোর ওপর কথা বলেছি। সীমান্তচুক্তির জন্য আমরা ভারতের প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করেছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসাও করেছেন নরেন্দ্র মোদি। আমরা আশা করি তিস্তা চুক্তি হবে। আমাদের পানির জন্য যে হাহাকার আছে তা উপস্থাপন করেছি। এই চুক্তি হলে একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন হবে।
তিনি বলেন, আমরা ভারতে গিয়ে সম্মানিত হয়েছি। বেশ কয়েকজন মন্ত্রীর সঙ্গে আলাদা আলোচনা হয়েছে। এছাড়া ব্যবসায়ী, অর্থনীতিবিদ, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে কথা হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে মাথা ঘামায় না ভারত। যা করার আমরাই করবো। দেশের জনগণই নির্ধারণ করবে কে ক্ষমতায় থাকবে আর কে থাকবে না।
রোববার ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) আমন্ত্রণে তিনদিনের ভারত সফরে যায় আওয়ামী লীগের ১৯ সদস্যের প্রতিনিধি দল।
ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন, দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনসহ অনেকে।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *